তিনটি অণুগল্প

তিনটি অণুগল্প

অণুগল্প ১: সিগারেট প্যাকে গোলাপী সাপ

পাগল হাসছে। তার হাতে ডানহিল ব্রান্ডের বিদেশী সিগারেট প্যাক। একবার করে প্যাকেটের মাথাটা খোলে, উঁকি দিয়ে দেখে, আর হাসে। আবার দেখে আবার হাসে। দুঃখে না আনন্দে বোঝা যায় না।

পাগল হাসছে। সিগারেট প্যাকেটে সিগারেট নেই। টাকা নেই, একবার যে গোটাকয়েক বিচি (পিস্তলের গুলি) আর গাজার পুড়িয়া পেয়েছিল তাও নেই। আরেকবার একজোড়া কানের দুল আর একটা সত্যিকার সোনার চেন পেয়েছিল, সেসবের কিছুও নেই! আছে একটা গোলাপী সাপ- কনডম। গিট্টু দিয়ে বাঁধা। ভেতরে জরায়ুকে বঞ্চিত করা বীর্য। একটু আগে সে যখন তার নিজস্ব স্বপ্নের ভেতরে ডোবা শুরু করছিল ঠিক তখন তার সামনে পড়ে সিগারেট প্যাকেটটা। ঝা-চকচক টয়োটা প্রিমিও গাড়ির জানালা খুলে যে মানুষটা প্যাকটা ফেলেছে তাকে দেখেছে পাগল। ভদ্রলোক ভদ্রলোক মুখ- বস বস চেহারা।

পাগল হাসছে। গোলাপী সাপটা হাতে পেয়ে কেন জানি না অনেক বছর পরে তার বউয়ের কথা মনে পড়ে। মনে পড়ে প্রথম রাতে প্রথম বারের কথা। কিছুতেই গোলাপী সাপটা ঠিকঠাক পড়তে পারছিল না। বউ তখন বলেÑ‘দেন দেখি আমারে দেন।’ এবং নিমিষে জিনিসটা পড়িয়ে দেয় তার জিনিসে। তখন জিনিসটা নিয়ে ভাবে নাই। কিন্তু এখন মনে হচ্ছে বউ কামডা পারল কেমনে? তখন তো শালার ইউটিউব ছিল না যে দেইখা দেইখা শিখব। তবে কি বউ তার…? ‘শালী, শালীর বিটি শালী, বেশ্যা মাগী!’ নিজের ভাতিজার সঙ্গে পালানো বউকে গালি দেয় পাগল।

পাশ দিয়ে হেটে যাচ্ছিল একটা মেয়ে। অদ্ভুত সুন্দর আর নিষ্পাপ মেয়েটার মুখ। পাগলের গালি শুনে চমকে যায়। গাল হয়ে ওঠে লাল, পা হয়ে ওঠে ভারী। গরমের এই বিকেলেও শীত শীত লাগে। ভাবে, বস আর তার ব্যাপারটা এই পাগল জানল কি করে?

ঘ্যাস-স-স-স-ও, বাসের কড়া ব্রেক করার শব্দ। মেয়েটা প্রায় উড়ে গিয়ে পড়ে অনেকটা দূর। মানুষের চিৎকার, কোলাহল, হুটোহুটি। অনেকের অনেক কথায় দু’টো কথাই বেশি বেশি শোনা যায়;
– আহা-হা! কি সুন্দর মাইয়াডা!
– মইরা গেছে মনে হয়।

অণুগল্প ২: ঘর পালানো প্রেমিক-প্রেমিকা

– চলো।

– চলো।

অণুগল্প ৩: রান্নাঘরের জানালায় একদিন

১০:৩৩

– আপনের নাম কি?

– আমেনা। তোর?

– খুশী।

আমেনা: খুশী? হিহিহি এইডা কেমন নাম?

খুশী: আসল নাম না। মেডামে দিছে।

– ক্যান

– ডাকতে আরাম।

– নাম ডাকতেও আরাম নাগে! খচ্চরতো তোর মেডাম। তগো আগের ভাড়াটিয়া ম্যাডামও খচ্চর আছিল।

– না, আমাগো ম্যাডাম ভাল।

– হু, কইছে তোরে; নতুন আইছস মনে হয়?

– এই আগের বাসায় চোদ্দ দিন, এই বাসায় দুই দিন।

– থাক কিছুদিন, তারপর দেখুমনে। বাসায় কি এহন তুই একা?

– হ।

– আমিও একাই আছিলাম, ইট্টু আগে সাহেব আইছে। ‘আসি-ই’… শুয়োর একটা।

– কারে শুয়োর কন?

– ওই যে, ডাকতাছে। আমাগো বাসার সাহেব।

– তো, শুয়োর কলেন যে!

– শুয়োররে শুয়োর কমু নাতো কি কমু? মুরগী? মুরগী তো আমি!

(গল্পটা এখানে শেষ হতে পারত)

১১:৩৩
আমেনাকে ডেকে নেয়- সাহেবের ছেলে ছোট সাহেব। আমেনা অবশ্য ছোট সাহেবকে ডাকে শুয়োরের বাচ্চা বলে। শুয়োর আর শুয়োরের বাচ্চাকে নিয়ে একটা খটকা আছে আমেনার। বাপ-বেডা কি দুইজনার ব্যাপারডা দুইজনায় জানে? জানার পরও করে? তাইলে তো এরা হুদাই শুয়োর কিংবা শুয়োরের বাচ্চা না। এরা হইল ঘোৎ ঘোৎ শুয়োর, ঘোৎ ঘোৎ শুয়োরের বাচ্চা।

(গল্পটা এখানেও শেষ হতে পারত)

১২:৩৩
‘রান্নার কি অবস্থা রে’- বলতে বলতে খুশির দু’কাধে দুই হাত রাখে ওর বাসার সাহেব। এবং কি অদ্ভুত কি অদ্ভুত! খুশী ওর ছোট্ট শুকনো নিতম্বে টের পায় অন্য রকম কিছু…

(ধ্যাত্তেরি! এ গল্পের শেষ নেই)

[ আরো পড়তে পারেন: অনুভব: ৩টি কবিতা

অণুগল্প: সম্পাদকীয় মন্তব্য

ছোট গল্পের নতুন শিশু অণুগল্প- Flash Fiction । বলাই বাহুল্য, দৃশ্যতঃ অণুগল্পের আকার-আকৃতি ছোটগল্পের চেয়েও ছোট। কিন্তু এর আবেগ, অনুভব আর আবেদন বহু দূর পর্যন্ত বিস্তৃত হতে পারে। অণুগল্পের শব্দগুলোর মধ্যে থাকে না-লেখা অনেক শব্দ। বাক্যগুলোর মধ্যে থাকে না-লেখা অনেক বাক্য। সেই না-লেখা অংশগুলো পূরণ করে নেয় পাঠক। এ হলো পাঠকের হাতে মুক্তা দিয়ে বলা, ‘ঝিনুক কেমন বল তো দেখি।’ অণুগল্পে মুক্তা দেখিয়ে সাগর দেখানোর সাহস করতে পারে লেখক।

পৃথিবীর সবচেয়ে আলোচিত অণুগল্পগুলোর একটি:

For sale. Baby shoes, Never worn.

`বিক্রির জন্য, শিশুর জুতা। অব্যবহৃত।

এটি লিখেছেন মার্কিন সাহিত্যিক আর্নেস্ট হেমিংওয়ে। তাঁর ‘ছয় শব্দের ধারাবিাহিক অণুগল্পে’র অন্যতম এটি।

আরো একটি অণুগল্পের নাম ‘নক’ । মার্কিন গল্পকার ফ্রেডরিক ব্রাউনের লেখা এই অণুগল্পটিকে আাবার পৃথিবীর সংক্ষিপ্ততম ভূতের গল্পও বলা হয়।

‘The last man on Earth sat alone in a room. There was a knock on the door…

`পৃথিবীর সর্বশেষ মানুষটি – একাকী একটা ঘরে। হঠাৎ দরজায় নক করে কেউ…।

ব্যস্ততম পৃথিবীর সাহিত্যের নতুন সম্ভাবনা ‘অণুগল্প’। জয় হোক অণুগল্পের।

মোসাদ্দেক মিল্লাত, সম্পাদক

A varying magnetic eld is reassuring with regard to hiv or hiv protease inhibitors, hiv non-nucleoside reverse transcriptase inhibitors, warfarin, cyclosporine, ketoconazole, oral contraceptives, theophylline. can i buy viagra over the counter in malaysia Psychological interventions include: Psychoeducation and support practical help, nancial assistance, social supports.

2 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here